দ্বাদশ বিশ্বকাপে উইলিয়ামসনের রান আউট মিস করেন মুশফিক

দ্বাদশ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রত্যাশিত ফল না পাওয়ার পেছনে অন্যতম কারণ ফিল্ডিংয়ের বেহাল দশা। কেবল বাজে ফিল্ডিংয়ের কারণেই বেশ কয়েকটি ম্যাচে হেরেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে মুশফিকের ভুলের কারণে কেন উইলিয়ামসনের রান আউটের হাত বেঁচে যাওয়া, সাব্বির রহমানের ভুলে অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারের জীবন পাওয়া, অবশ্যই জিততে হবে এমন ম্যাচে তামিমের ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মার ক্যাচ মিস- এই ভুলগুলো না হলে হয়তোবা বিশ্বকাপে প্রত্যাশিত ফলাফল পেতে পারত টাইগাররা। এ ছাড়া দ্বাদশ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের গ্রাউন্ড ফিল্ডিংও ছিল বড্ড বাজে। ফিল্ডিংয়ের এমন বিবর্ণ অবস্থা দেখা গেছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতেও।

সেমিফাইনালে অংশগ্রহণকে প্রাথমিক লক্ষ্য বানিয়ে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস বিশ্বকাপে অংশ নিতে গিয়েছিল মাশরাফির নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। কিন্তু ব্যাটসম্যানরা ভালো করলেও বিশ্বকাপে নিজেদের নামের প্রতি খুব একটা সুবিচার করতে পারেননি টাইগার বোলাররা। আর বোলারদের মাত্রাতিরিক্ত খরুচে বোলিংয়ের পেছনে দায়ী বাজে ফিল্ডিং। এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের গ্রাউন্ড ফিল্ডিং ছিল যথেষ্ট বাজে। এ ছাড়া ফিল্ডাররা মিস করেছেন বেশ কিছু সহজ ক্যাচ। যার খেসারত দিতে হয়েছে ম্যাচ হারার মধ্য দিয়ে।

দ্বাদশ বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। ওই ম্যাচে ২৪৪ রানের পুঁজি নিয়েও সমানতালে লড়াই করেছে ম্যাশবাহিনী। ম্যাচটি টাইগাররা জিততেও পারত, যদি উইলিয়ামসনের নিশ্চিত রান আউট মিস না করতেন টাইগার উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিম। রান আউটের ফাঁদ থেকে বেঁচে যাওয়া উইলিয়ামসনই তৃতীয় উইকেটে রস টেইলরের সঙ্গে ১০৫ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের ভিত তৈরি করে দিয়েছিলেন। ম্যাচটি টাইগাররা হেরেছিল ২ উইকেটে।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাত্র ১২ রানের মাথায় ওয়ার্নারের ক্যাচ ছাড়েন সাব্বির রহমান। পরবর্তীতে ১৬৬ রানের বিধ্বঃস্তী এক ইনিংস খেলেন বাঁ-হাতি অজি ওপেনার। আর সেমিতে যেতে হলে নিশ্চিত জিততে হবে এমন ম্যাচের পঞ্চম ওভারের মাথায় ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মার সহজ ক্যাচ তালুবন্দী করতে ব্যর্থ হয়েছিলেন তামিম। শুরুতেই জীবন পাওয়া রোহিত ১০৪ রানের ইনিংস  খেলে দলকে গড়ে দিয়েছিলেন বড় স্কোরের ভিত। এগুলো উল্লেখযোগ্য মিস। যে ভুলগুলো টাইগার ভক্তদের পুড়াবে চিরকাল। এ ছাড়া গ্রাউন্ড ফিল্ডিং এবং ক্যাচ নেয়ার ক্ষেত্রে পুরো বিশ্বকাপ জুড়েই টাইগারদের অবস্থা ছিল শোচনীয়।

বিশ্বকাপের বাজে ফিল্ডিংয়ের ভূত এখনো ছাড়েনি বাংলাদেশ দলকে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গত পরশু অনুষ্ঠিত প্রথম ওয়ানডেতেও দেখা গেল দৃষ্টিকটু সব ভুল। অনেক সময় লঙ্কান ব্যাটসম্যানরা সিঙ্গেলের জায়গায় নিয়েছেন দুই রান। এ ছাড়া একটু সচেতন হলেই বাঁচানো যেত বেশ কিছু বাউন্ডারি। আর সেটা হয়েছে টাইগার ফিল্ডারদের ক্ষিপ্রতার অভাবে। কুশল মেন্ডিসের ক্যাচ মিস করেছেন অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। পরবর্তীতে সেই মেন্ডিসই কুশল পেরেরার সঙ্গে গড়ে তুলেন ১০০ রানের জুটি। মোদ্দা কথা, দিমুথ করুনারত্নের দলের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে টাইগারদের ফিল্ডিং ছিল খুবই বিবর্ণ।

এদিকে প্রথম ম্যাচে বাজে ফিল্ডিংয়ের কথা স্বীকার করেছেন টাইগার অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। তামিমের ভাষায়, আমাদের বাজে ফিল্ডিংয়ের কারণে ওদের স্কোরবোর্ডে অতিরিক্ত ১০-১৫ রান যোগ হয়েছে। খেলা শেষে এই ১০-১৫ রানই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায়। এ জায়গায় দ্রুত উন্নতি করতে হবে। ব্যাটিং-বোলিংয়ে অনেক সময় কিছু বিষয় হাতে থাকে না। ব্যাটিংয়ে খুব ভালো বল আসতে পারে, আবার বোলিংয়ে একটি ভালো বলে হতে পারে চার। কিন্তু ফিল্ডিংয়ে চাইলেই ভালো করা যায়। আশা করি, দ্বিতীয় ম্যাচে আমাদের ফিল্ডিং ভালো হবে।

তামিমের কথা সত্যি হোক। আজ ফিল্ডিংয়ের বেহাল দশা থেকে বেরিয়ে আসুক টাইগাররা- এমনই প্রত্যাশা বাংলাদেশের প্রতিটি সমর্থকের।

-এসএমসা/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here