ঢাকার বুকে গত ১৫ নভেম্বর-২০১৯ এ আসর বসেছিল এক টুকরো রাজবাড়ীর। রাজবাড়ীর এ যাবৎ কালের সবথেকে বড় বর্তমান ও প্রাক্তন ক্রিকেটার দের মিলন মেলা হয়ে গেল আসিয়ান সিটির মাঠে। পূর্বনির্ধারিত সময়ানুযায়ী সকালে ৭ টার অনেক আগেই বর্তমান ও প্রাক্তন ক্রিকেটার রা চলে আসেন মাঠে। সবার সাথে সবার এই মিলন মেলায় অনেকদিন পর মাঠের সঙ্গীর সাথে দেখা হয়ে অনেক আবেগে আপ্লুত হয়েছেন,ডুব দিয়েছিলেন স্মৃতির অতল সাগরে। আমন্ত্রিত ছিলেন রাজবাড়ী জেলার একাল ও সেকালের ক্রিকেটারদের ক্রিকেট গুরু আব্দুল গাফফার হাজী। রাজবাড়ীর ক্রিকেটের অন্যতম ২ জন সংগঠক রজব ও তৌফিকুল ইসলাম খান উপস্থিত ছিলেন। উল্ল্যেখযোগ্য ক্রিকেটারদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইমরুল খান, অসীম কুমার সিংহ,গোলাম আজম সবুজ,পাভেল নিয়োগী ডালিম ,কামরান খান সোহাগ, রিফাজুল ইসলাম রোমান,সজীব চক্রবর্তী, মিলন খান,মোসাব্বের হোসেন বাধন,মাহাবুবুর রহমান মনা,এ.টি.এম আবিদ হোসেন। প্রায় ১৩০ জন ক্রিকেটার কে নিয়ে প্রাক্তন থেকে বর্তমান ব্যাচ অনুযায়ী ৬টি দল গঠন করা হয়। সবচেয়ে প্রবিন টিমের কাপ্তান ছিলেন রাজবাড়ী জেলার ক্রিকেটের স্বর্ণ যুগের কাপ্তান মো. আরমান শাহাদত প্যারিস।

তার পরের টিমের কাপ্তান ছিলেন জেলা ক্রিকেটের অন্যতম সেরা কাপ্তান আশরাফ আলী রাব্বু। এর পরের টিম কাপ্তান ছিল জেলা ক্রিকেটের আরেক সফল খেলোয়াড় সাইদুর রহমান মিতুল। এরপরে টিমের কপ্তান ছিলেন সদ্য সাবেক হওয়া জেলার ক্রিকেটে দলের ক্যাপ্টেন ও অন্যতম সফল ক্রিকেটার আসিফ তানজিল রোমিও। যথাক্রমে পরের দুই দলের কাপ্তান ছিল সফিকুর রাহমান সফিক ও রবিউল ইসলাম সজীব।।

৬ টা দলের মোট ৩ টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। নবীন ক্রিকেটারদের দল থেকে পর্যায় ক্রমে উপরের প্রবীণ ক্রিকেটার দের দলের সাথে ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হয়।

১ ম ম্যাচে জয় লাভ করে সজীবের দল। ২য় ম্যাচে রোমিওর দল। এবং ৩ য় ম্যাচে প্যারিসের দল।

দিনের ব্যাক্তিগত সর্বোচ্চ রান করেন রাজবাড়ী জেলার ক্রিকেট ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ ব্যাটসম্যান মো. আরমান শাহাদত প্যারিস (৫৩)।

এসোসিয়েশন প্রতিষ্ঠা ও খেলা আয়োজনে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন, মোঃ আরমান শাহাদত প্যারিস, কামরান খান সোহাগ, আশরাফ আলী রাব্বু, জাহীরুল হাসান, সাইদুর রহমান মিতুল, আসিফ তানজিল রোমিও, মুসাব্বির হোসেন বাধঁন, এ টি এম আবিদ হোসেন, সাম্মির সাকিব সুমীত, মিলন খান, রবিউল ইসলাম সজীব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here